Smart Phone কেনার আগে যে বিষয়গুলো জানা দরকার । না জানলে সর্বনাশ!

February 18, 2019
স্মার্টফোন কেনার আগে যে বিষয়গুলো জানা দরকার । না জানলে সর্বনাশ!

এখনকার দিনে স্মার্টফোনের উপর ঝোঁক দেখা যায় ক্রেতাদের মাঝে। New ফোন কেনার আগে কয়েকটি বিষয় লক্ষ্য রাখা দরকার। প্রত্যাশা অনুযায়ী Smart Phone পেতে কিছু বিষয় খেয়াল রাখতে হবে।

আসুন জেনে নিন Smart Phone কেনার আগে যে বিষয়গুলো জানবেন….

Price:
এমনিতেই মোবাইল ফোনসেটের Price যত বেশি হবে, তার সবকিছুই তত ভালো হবে। তবে Smart Phon কেনার আগে একই Model  এর  অন্য কোনো সংস্করণ খুব শিগগিরই বাজারে আসলে তা থেকে কোনো Benefit পান কিনা কেনার আগে তা Must ভেবে নিন।

Display Quality:
স্মার্টফোন কেনার আগে যে বিষয়গুলো জানা দরকার । না জানলে সর্বনাশ!

স্মার্টফোন কেনার সময় Screen এর গুণগত মান দেখে নেওয়াটা অনেক বেশি প্রয়োজনীয় । সবচেয়ে ভালো মানের ডিসপ্লে 2080 পি (190 x 1080)  পিক্সেলস) ফোনের দাম বেশ চড়া। এক্ষেত্রে কেনার আগে খেয়াল করে দেখতে হবে ভিন্ন ভিন্ন কোণ থেকে দেখলে ছবি Clean দেখা যায় কিনা। তবে সাধারণ মানের মোবাইলের Display 720পি-এর কম হয়ে থাকে।

Operating System:
এখনকার সবচেয়ে জনপ্রিয় Operating সিস্টেমের মধ্যে Android, আইওএস 7, উইন্ডোজ অন্যতম। এক্ষেত্রে Smart Phone কেনার আগে পছন্দেরটি বেছে নিন। কারণ Operating সিস্টেমের ওপর ভিত্তি করেই গোটা ফোনের সব কার্যক্রম নির্ধারিত হয়।

Design:
যে কোনো Smart Phone কেনার ক্ষেত্রে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো এর Design । তাই আগে থেকেই মনস্থির করুন কোন ডিজাইনের Smart Phone ভালো লাগে। বাজারের সব স্মার্ট ফোনের নজরকাড়া Design রয়েছে। কাজেই নিজের ব্যক্তিগত চাহিদা এবং রুচি অনুযায়ী Design পছন্দ করাই Better

Weight :
স্মার্টফোন কিনতে যাওয়ার আগে কেমন Weight এর  মোবাইল ফোনসেট কিনবেন তা একবার ভেবে নিবেন। Because মোবাইল ফোনসেট যত বড় হয় Generally এর ওজনও তত বেশি হয়। তবে ফোনসেটে Battery লাগানোর কারণেও মোবাইলের Weight বেশি হয়।


Screen Size:
বড় স্ক্রিনের Smart Phone বেশি জনপ্রিয় হলেও সহজে বহন করতে চাইলে ছোট পর্দার Smart Phone নেওয়া উচিত। এক্ষেত্রে চার ইঞ্চি বা সাড়ে চার ইঞ্চি বা পাঁচ ইঞ্চি পর্দার Smart Phone এর বেশ চাহিদা রয়েছে।

Battery Capability:
Smart Phone কেমন তার ওপর ভিত্তি করে ব্যাটারির শক্তি নির্ধারিত হয়। তবে বড় মাপের স্ক্রিনের জন্য শক্তিশালী Battery প্রয়োজন হয়। আর এখন 3000 এমএএইচ সবচেয়ে বেশি শক্তির Battery হিসেবে বাজারে চালু রয়েছে।

Bluetooth:
ব্লু টুথ ছাড়া অন্য কোনো Smart Phone এর সঙ্গে কিছুই লেনদেন করতে পারবেন না। তাই কেনার আগে ব্লু-টুথ আছে কিনা তা একবার Justify করে নিন।

Ram Capability :
ফোনের কার্যক্রমে দ্রুততা এনে দেয় Ram কাজেই ফোন কিনতে গেলে 2GB  র‌্যাম নেওয়ার চেষ্টা করা উচিত। তবে আধুনিক Smart Phone গুলোতে 3GB পর্যন্ত র‌্যাম নিয়ে বাজারে আসছে।

ওয়্যারলেস চার্জিং:
তার ছাড়া Charge দেওয়ার ব্যবস্থা অবশ্য খুব প্রয়োজনীয় কিছু নয়। তবে যেখানে সেখানে Plug পয়েন্ট না থাকার সমস্যায় ওয়্যারলেস চার্জিং System বেশ ভালো।

3G or 4G:
দেশে Recently থ্রি-জি কানেকশন চালু হয়েছে। ডাটা কানেকশনের Speed  নির্ভর করে এর ওপর। আরো দ্রুত কানেকশন দেয় 4G । এ যুগের স্মার্টফোনের জন্য 3G কানেকশন নিতে পারে এমন মোবাইল সাধারণত বেশি ভালো।

অ্যাপ্লিকেশন:
Smart Phone এ যেসব অ্যাপস সাপোর্ট করে তাই ব্যবহার করুন। আর যেসব অ্যাপস মোবাইলের জন্য নয় তা অবশ্যই কাজে লাগানোর চেষ্টা করবেন না। তা ছাড়া মোবাইল ফোনসেট অনুযায়ী আলাদাভাবে অ্যাপসের Collection ইন্টারনেটে দেওয়া থাকে। সেখান থেকেই ফোনটির জন্য Apps বাছাই করে নেওয়া উচিত।

পপুলার রিভিউ ও রেটিং সাইট ব্যবহার করুন:
Internet থাকলে নানা সাইটে ঢুঁ মারতেই হয়। তবে Malware এর  আক্রমণ থেকে বাঁচতে Popular রিভিউ ও Ratings সাইটে ঘোরাফেরা করবেন।

সফটওয়্যার আপডেট রাখা:
ফোনের Software প্রতিনিয়ত আপডেট হচ্ছে। যদি নিজের ফোনের সফটওয়্যারগুলো Update  রাখেন তাহলে যন্ত্রটি সুন্দরমতো কাজ করবে। একইসঙ্গে ফোনটিও আরো Long Time ভালো থাকবে।

কন্ট্রাক্ট ফোন নেওয়ার জন্য:
Europe-আমেরিকাতে অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বিভিন্ন শর্তের ভিত্তিতে Smart Phone কেনার ব্যবস্থা রয়েছে। আমাদের দেশেও অপারেটর প্রতিষ্ঠানগুলো এমন Offer দিয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে কোন প্রতিষ্ঠান সবচেয়ে বেশি সুবিধা দিচ্ছে এবং মোবাইলগুলোর Model এর  সঙ্গে Price ও সুবিধাগুলোর Compare করে নিজের পছন্দ অনুযায়ী নেবেন।

Share this

Related Posts

Previous
Next Post »

Follow by Email